Sustain Humanity


Tuesday, October 11, 2016

ছত্রিশগড়ে নিখিল ভারত সমিতির ঐতিহাসিক বিজয়।

ছত্রিশগড়ে নিখিল ভারত সমিতির ঐতিহাসিক বিজয়।
মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার রমন সিং এর হস্তক্ষেপে ছত্রিশগড়ে পাখানজোরে অমরন অনশন আন্দোলন ৬ অক্টোবর ২০১৬ স্থগিত ।সমিতির রাষ্ট্রিয় অধ্যক্ষ ডা সুবোধ বিশ্বাস ১২ জন অনশন কারিদের সরবত খাইয়ে অনশন ভঙ্গ করেন।
৭ অক্টোবর রায়পুরে সমিতির প্রতিনিধিদের সংগে মুখ্যমন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেন। মাতৃভাষা ও জমির পাট্টা/ জমি হস্তান্তর করার দাবী মুখ্যমন্ত্রী মেনেনেন। জাতিপ্রমান পত্রের দাবী (SC) বাস্তবায়নের জন্য সাত সদস্যের কমিটি গঠন করেন। সরকারী অধিকারী সংগে কমিটির মধ্যে তিনজন নিখিল ভারত সমিতির সদস্যদের নেওয়া হবে। যেসব রাজ্যে উদ্বাস্তু তপশীলী বাঙালিরা জাতিপ্রমান পত্রের সুযোগ পাচ্ছে, সেসব রাজ্যের সার্ভে রিপোর্ট তিনমাসের মধ্যে ছত্রিশগড় সরকারকে জমাদেবে। রিপোর্টের ভিত্তিতে নতুন করে Ethnographic রিপোর্ট তৈরীকরে রাজ্য সরকার কেন্দ্র সরকারকে সুপারিশ পত্র পাঠাবেন। আন্দোলনের প্রথম ধাপে উদ্বাস্তুরা জয়ী হয়েছে। এ বিজয় কেবল ছত্রিশগড়ের ২০ লাখ উদ্বাস্তু বাঙালির জয় নয় । সমগ্র বাঙালির জাতির জয়। আন্দোলন কারিদের বিজয়।
জাতির অস্তিত্বের রক্ষার সার্থে যেসব সংগ্রামী সমাজ দরদীরা নিজের জীবনকে বাজীরেখে অমরন অনশনে বসেছিলেন , সম্মানীয়া দূলু রানী হালদার, বয়স ৭৮ বৎসর, সর্বশ্রী অসীম রায়, (সভাপতি )